আজ শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
«» নতুন প্রার্থী হিসেবে চমক দেখাতে চান মুসলিমা খাতুন নীতি «» প্রজাপতি প্রতীক পেয়েই ভোটের মাঠে মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী শিউলী বেগম «» শিবগঞ্জে মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন নুরজাহান বেগম «» ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম রাব্বানী «» শিবগঞ্জে মনোনয়ন জমা শেষ, চেয়ারম্যান ৬, ভাইস-চেয়ারম্যান ৭, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান ৩ «» ভোটারদের উৎসাহেই নির্বাচনে এসেছি -ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উজ্জ্বল «» ভোটারদের উৎসাহেই নির্বাচনে এসেছি -ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উজ্জ্বল «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ ভেটেরিনারি এসোসিয়েশনের উদ্যোগে ঈদ পূর্ণমিলনী «» শিবগঞ্জে শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ফুটবল টুর্নামেন্ট ও পুরস্কার বিতরণ «» শিবগঞ্জে সাহাপাড়া আলহেরা আল জামিয়াতুল ইসলামীয়ার আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী

শিবগঞ্জে বৈধ জমির গাছ কাটতে ভাইকে বাধা দেয়ার অভিযোগ, দলিল জাল বলে দাবী বোনের

নিউজ ডেস্ক : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে নিজের বৈধ জমির আমগাছ কাটতে বোনের বাধা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মোবারকপুর ইউনিয়নের শিকারপুর গ্রামে। শুক্রবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০২০ দুপুরে সরেজমিনে গেলে মোবারকপুর শিকারপুর গ্রামের মৃত মোহসিন আলীর ছেলে রেজাউল ইসলাম মাষ্টার জানান, আমার বোনদের সকলকেই তাদের প্রাপ্য অনুযায়ী সকল সম্পদের অংশ বুঝিয়ে দেয়ার পরও ২০০৬ সালে অহেতুক আমাদের জমির উপরে আদালতে মামলা দায়ের করে। এরপর ২০১২ সালে মহামাণ্য আদালত আমাদের পক্ষে রায় প্রদান করলে আমরা দীর্ঘ দিন যাবৎ সেই জমি ভোগ করেই আসছি। প্রয়োজনের তাগিদে আমরা পৈতৃক সূত্রে প্রাপ্ত জমিতে থাকা আমগাছ কাটার সময় আমার বোন মুক্তারা বেগম অহেতুক কিছু লোকজন নিয়ে এসে বার বার শ্রমিকদের গাছ কাটতে বাধা প্রদান করেন। এমনকি আমাদের গাছ কাটার বিরুদ্ধে আমার বোন থানায় অভিযোগও করেছেন। জমির বৈধ সকল কাগজপত্র ধাকা সত্ত্বেও এমন বাধা প্রদান ও থানায় অভিযোগ করা হয়রানী বলেই আমরা মনে করি। এদিকে রেজাউল ইসলাম মাষ্টারের বোন মুক্তারা বেগম বলেন, ঐ জমিতে যেহেতু পৈতৃক সূত্রে আমার অংশ রয়েছে, সেহেতু আমি এভাবে ইচ্ছেমতো তা ভোগ করতে দেব না। আমার ভাই রেজাউল ইসলাম মাষ্টার যেসব দলিলরপত্র দেখাচ্ছেন তা মিথ্যা ও জাল। আমি থানায় অভিযোগ করে আইনের আশ্রয় নিয়েছি, অভিযোগ নিষ্পত্তি হওয়ার আগেই অত্র জমিতে থাকা আমগাছ কেটে নেয়ার বিরুদ্ধে আমরা অবস্থান নিয়েছি। এদিকে শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো: শাহীন রেজা জানান, গত কয়েকদিন আগের একটি অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল বৃহস্পতিবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০ উভয় পক্ষকে ডেকে থানায় এক সালীশের মাধ্যমে একটি কমিটি করা হয়েছে । আগামী পনেরো দিনের মধ্যে উভয় পক্ষ তাদের স্ব স্ব প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কমিটির নিকট জমা দিবেন, কমিটি কাগজপত্র যাচাই করে একটি সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এই সিদ্ধান্ত মোতাবেক অভিযোগের তদন্ত ও নিষ্পত্তি কার্যক্রম চলমান থাকায় এবং শান্তি ও শৃংখলা রক্ষার্থে আগামী পনেরো দিনের পূর্বে কোন পক্ষই ঐ জমি ব্যবহার করতে পারবেননা বলেও বলা হয়েছে।

আপনার মতামত দিন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :