আজ বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৫:১৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
«» নতুন প্রার্থী হিসেবে চমক দেখাতে চান মুসলিমা খাতুন নীতি «» প্রজাপতি প্রতীক পেয়েই ভোটের মাঠে মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী শিউলী বেগম «» শিবগঞ্জে মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন নুরজাহান বেগম «» ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম রাব্বানী «» শিবগঞ্জে মনোনয়ন জমা শেষ, চেয়ারম্যান ৬, ভাইস-চেয়ারম্যান ৭, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান ৩ «» ভোটারদের উৎসাহেই নির্বাচনে এসেছি -ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উজ্জ্বল «» ভোটারদের উৎসাহেই নির্বাচনে এসেছি -ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উজ্জ্বল «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ ভেটেরিনারি এসোসিয়েশনের উদ্যোগে ঈদ পূর্ণমিলনী «» শিবগঞ্জে শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ফুটবল টুর্নামেন্ট ও পুরস্কার বিতরণ «» শিবগঞ্জে সাহাপাড়া আলহেরা আল জামিয়াতুল ইসলামীয়ার আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী

শিবগঞ্জে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

নিউজ ডেস্ক : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়রের বিরুদ্ধে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছে শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। গত ৪ জুন বৃহস্পতিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ মটর শ্রমিক ইউনিয়নের ব্যানারে চাঁপাই-সোনামসজিদ মহাসড়কের রসুলপুর মোড়ে শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়রের লোকজন দিয়ে মহাসড়কে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয় ।

এর প্রতিবাদে ৫ জুন শুক্রবার দুপুরে শিবগঞ্জ পৌরসভা চত্তরে সেই মানববন্ধনকে ষড়যন্ত্রমূলক, মানহানিকর ও অপপ্রচার উল্লেখ করে তার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেন পৌর মেয়র কারিবুল হক রাজিন।

শনিবার ৬ জুন সকাল সাড়ে ১০ টায় আবারো পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছে শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। সংবাদ সম্মেলনে শিবগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লিখিত বক্তব্যে বলেন, শিবগঞ্জ পৌর মেয়র কারিবুল হক রাজিন একজন প্রতিষ্ঠিত চাঁদাবাজ, দূর্ণীতি পরায়ন ও মাদকাসক্ত দুষ্কৃতি প্রকৃতির ব্যক্তি ।

শিবগঞ্জ পৌরসভায় লোড আনলোডের অজুহাতে চলমান গাড়ি থামিয়ে টোল আদায় রীতিমত চাঁদাবাজি। শিবগঞ্জ পৌরসভায় পরিবহন সেক্টরের জন্য কোন বিধিবদ্ধ পার্কিং এরিয়া নেই। অথচ শিবগঞ্জ পৌর মেয়র তার পোষা লোকজন দিয়ে চাঁদা তুলছেন । এ ছাড়া চাঁদা না দেয়ায় ৩ জুন এসরাইল মোড়ে এক চালককে বেদম প্রহার করে এবং নির্যাতিত চালকের আত্মচিৎকারে স্থানীয় শ্রমিক সংগঠনের লোকজনসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা জড়ো হলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

এরই ধারাবাহিকতায় ৪ জুন শ্রমিক নির্যাতনের প্রতিবাদে শ্রমিক সংগঠনের ব্যানারে রসুলপুর মোড়ে একটি প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ শিবগঞ্জ পৌর শাখা ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ একাত্বতা ও সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন। কিন্তু বিষয়টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য তিনি সাংবাদিক সম্মেলনে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দর উপর বিষোদগার করেন যা কোন ভাবেই কাম্য নয়। আজকের সাংবাদিক সম্মেলন থেকে এহেন ন্যাক্কারজনক কর্মকাণ্ড ও মিথ্যাচারের প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয়, করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন দিনরাত পরিশ্রম করছেন তখন শিবগঞ্জ পৌর মেয়র ত্রাণ নিয়ে ঘৃণ্য রাজনীতিতে মেতে উঠেছেন। প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ত্রাণ সামগ্রীকে নিজের নামে চালানোর চেষ্টা করছেন। প্রধানমন্ত্রীর দেয়া সরকারি ত্রাণ নিজের নামে দেয়া যেমন অপরাধ তেমন মিথ্যাচারো।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ত্রাণ বিতরণ তদারকির জন্য কমিটি গঠণের নির্দেশ দেন তখন বুঝে নিতে হবে রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গকে বাদদিয়ে ত্রাণ কার্যক্রম যৌক্তিক হবে না। পৌর মেয়র নৌকা বিরোধী অবস্থান আরো জহির করার জন্য তিনি নিজে মুখে যেমন বলে বেড়াচ্ছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়নের মেয়র নয়। তেমনি আওয়ামী লীগের লোকজন বাদ দিয়ে একতরফা নিজস্ব লোকজনের মধ্যে ২৫০০ টাকা ঈদ প্রণোদনা প্যাকেজ বিতরণ করছেন ।

এ বিষয়ে এরই মধ্যে লিখিত অভিযোগ এমপি, জেলা প্রশাসন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পরিষদ চেয়ারম্যান কে দেয়া হয়েছে শিবগঞ্জ ওয়ার্ড আ.লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে। বারবার তাগাদা দেয়া সত্বেও ঈদ প্রণোদনা প্যাকেজ তালিকা প্রকাশ করছেন না ।

লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয়, শিবগঞ্জ পৌর সভার একজন কৃতি সন্তান যিনি বিভিন্ন ভাবে শিবগঞ্জের মানুষকে সহযোগিতা করে আসছেন। তাকে আমরা শিবগঞ্জের মানুষ মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে জানি। তাঁর সুনাম নষ্ট হয় এমন অন্তঃসারশূণ্য বক্তব্য তিনি রেখেছেন। যা নিঃসন্দেহে নিন্দনীয় ও অকৃতজ্ঞতার বহিঃপ্রকাশ। আমরা জানি আপনি কারিবুল হক রাজিন
নিজেই পা হারানোর পর সর্বপ্রথম উক্ত মহান ব্যক্তিটির কাছে দারস্থ হন এবং তিনি আপনার সমস্ত চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করেন।

তাছাড়া অনেকের কাছে পা লাগানোর কথা বলে অর্থ সংগ্রহ করেছেন অথচ রানা প্লাজায় ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকদের জন্য বরাদ্দকৃত দাতা সংস্থার দেয়া একটি পা লাগিয়েছেন বিনা পয়সায়।

এ ছাড়া হাটঘাট ইজারা প্রদানে অনিয়ম, টেন্ডার না করেই উন্নয়ন কাজের ঠিকাদার নিয়োগ, নিয়োগ বাণিজ্য, ভুতুড়ে বিল ভাউচার করার অভিযোগও করা হয় লিখিত বক্তব্যে। এ ছাড়া নিয়োগ বাণিজ্যে ১৭ জনকে নিয়োগ দেন তিনি। পৌরসভার কর্মচারীদের ১২ মাসের বেতন দিতে পারছেন না। মাদকের পেছনে অর্থ যোগান ও শিবগঞ্জকে মাদকের অভয়ারণ্যে পরিনত করেছেন মেয়র রাজিন।

শিবগঞ্জ আওয়ামী লীগ, পৌর যুবলীগ, কৃষকলীগ, ছাত্রলীগের ব্যানারে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া, পৌর যুবলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক আসিফ আহমেদ, উপজেলা কৃষক লীগ সভাপতি শাখাওয়াত হোসেন তুসার ও সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসিফ আহসান, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদি হাসান হিমেল ও সাধারণ সম্পাদক আলিরাজ সহ অন্য নেতৃবৃন্দ ।

আপনার মতামত দিন :
সংবাদটি শেয়ার করুন :